ডাক্তার-রুগী

আবার আসবে কিন্তু

হাসপাতালে এক রোগী দীর্ঘদিন থাকল। ডাক্তার, নার্স, রোগী সবার সাথে তার খাতির হয়ে গিয়েছিল। একদিন সুস্থ হয়ে চলে যাচ্ছে সবাই বলল, “আবার আসবে কিন্তু”।

স্ত্রীর সঙ্গে আলাপ

চেম্বার থেকে বাড়ি ফিরে স্ত্রীর সঙ্গে আলাপ করছে সার্জন রহমান। – এই মাত্র যে অপারেশনটা করলাম আরেকটু হলেই… – আরেকটু হলেই কি মারা যেত? – না, ভাল হয়ে বাড়ি চলে যেত।

অপারেশন টেবিলে

অপারেশন টেবিলে শুয়ে আছে একজন রোগী। এক তরুণ সার্জন। তাকে দেখে রোগী আঁতকে উঠল। – আপনি? না না আপনাকে দিয়ে আমি আর অপারেশন করাব না। আপনি নয় বার আমার অপারেশন করিয়েছেন, নয়বারই আমি মরতে মরতে বেঁচে গেছি। – প্লিজ,আমাকে আর একবার সুযোগ দিন। আর একটা অপারেশন করতে পারলেই আমি সিনিয়র সার্জন হতে পারব।

শশা ও কোলবালিশ

এক লোক হন্ত দন্ত হয়ে ডাক্তারের কাছে এসে বলল, – ডাক্তার সাহেব, সর্বনাশ হয়ে গেছে। কাল রাত স্বপ্নে দেখেছি আমি ইয়া বড় একটা শসা খেয়ে ফেলেছি। – আরে! এতে চিন্তার কী আছে? – কিন্তু সকালে উঠে আমার কোলবালিশটা যে আর খুঁজে পাচ্ছি না!

ডাক্তার হাসান

আগে থেকে নাম না লেখালে রোগী দেখেন না ডাক্তার হাসান। এক রোগী প্রতিদিনই ডেট চেয়ে টেলিফোন করতে লাগল। ডাক্তার হাসান প্রতিবারই তার সেক্রেটারির সঙ্গে যোগাযোগ করতে বললেন। শেষ টেলিফোনে রোগী বলল, আপনার কথামতো আপনার সুন্দরী সেক্রেটারির সঙ্গে চার রাত কাটাবার পর আজ আপনাকে দেখাবার সুযোগ পেয়েছি।

ডেন্টিস্ট ও রোগী

ডেন্টিস্টঃ সর্বনাশ! আপনার দাঁতের মাঝে বিরাট একটা গর্ত হয়েছে – বিরাট একটা গর্ত হয়েছে। রোগীঃ দুইবার বলার দরকার নেই। একবারেই বুঝতে পেরেছি। ডেন্টিস্টঃ দু’ বার বলিনি, একবারই বলেছি। রোগীঃ কিন্তু আমি তো দুইবার শুনলাম। ডেন্টিস্টঃ আসলে আপনার দাঁতের গর্তটা এত বড় যে সেখান থেকে প্রতিধ্বনি হয়ে দু’বার শোনা গেছে।

বাঁশির শব্দ শুনে

সাইকিয়াট্রিস্টঃ আপনি নাকি ঘুমানোর আগে খুব জোরে বাঁশি বাজান? মানসিক রোগীঃ না বাজিয়ে উপায় নেই ডাক্তার সাহেব, এই বাঁশির শব্দ শুনেই তো গণ্ডারগুলো ভয় পেয়ে যায় আর আমাকে আক্রমণ করতে আসে না। সাইকিয়াট্রিস্টঃ কিন্তু বাংলাদেশের আশেপাশে শত মাইলে মধ্যে তো কোন গণ্ডার নেই। ॥ মানসিক রোগীঃ আমার বাঁশির শব্দ শুনে পালিয়েছে!

ভয়ে ডাক্তারের কাছে

সমস্ত শরীরে চাকা-চাকা ফোলা দেখা দেয় এক লোকের। ভয়ে ডাক্তারের কাছে যান তিনি। ডাক্তার অনেক্ষণ দেখেও রোগটা ধরতে না পেরে নিজের অক্ষমতা ঢাকার জন্য জিঞ্জেস করল, এই রোগটা কি আগেও হয়েছিল? – জি, আগে একবার হয়েছিল। – তা হলে এই রোগটা আগের সেই রোগ।

স্বামীর মূল্য

মহিলাঃ আমার স্বামীকে সুস্থ করে তোলার জন্য আপনাকে কত ফি দিতে হবে? ডাক্তারঃ আপনার কাছে আপনার স্বামীর মূল্য অনুসারেই দিন না? মহিলাঃ এই নিন, দশটা টাকা রাখুন।