বন্ধু বান্ধব

সেলফিশ

পরীক্ষার হল – – দোস্ত, স্বার্থপরের ইংরেজি কী রে? – এখন বলতে পারব না। দেখছিস না ইংরেজি স্যার কীভাবে তাকিয়ে আছে এদিকে? – বুঝেছি, তুই একটা সেলফিশ।

মাথা ভর্তি টাক

দুই বন্ধুতে বহুদিন পর দেখা। প্রথম বন্ধু জিঞ্জেস করে, হ্যাঁরে ছেলেবেলায় তোর কত আশা ছিল মনে, সেসব কিছু পূরণ হলো? দ্বিতীয় বন্ধুঃ হ্যাঁ ভা, একটা আশা সফল হয়েছে। স্কুলে পড়া বলতে না পারার জন্য যখন মাষ্টার চুল ধরে হ্যাঁচকা টান মারতো, তখন ভাবতাম আমার যদি চুল না থাকতো, কি ভালই না হতো। এখন এই দেখ, …

মাথা ভর্তি টাক Read More »

তিন দিন ধরে দেখা নেই

প্রথম বান্ধবীঃ ওর কথা আর বলিসনে ভাই। তিনদিন ধরে ওর সঙ্গে আমার দেখা নেই। দিত্বীয় বান্ধবীঃ কোথায় কোথায় ঘোরেন তোর স্বামী, তুই জানিস না? প্রথম স্বামীঃ কোথায় আবার, বাড়িতে।

টাকার কুমীর

আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের লোকেরা টাকার কুমীর বলে খ্যাতি আছে। দুইজন টেক্সাসের লোক একবার পানাহার করে বের হল। বারের সামনেই ছিল একটি মোটর কোম্পানির শো। দু’জন দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে গাড়ি দেখছিল। হঠাৎ একজন বলল, ও গাড়ির রং তো খুব সুন্দর, চল কিনে নেওয়া যাক। দ্বিতীয়জন বললো, বেশতো, কিন্তু বন্ধু এবার কিন্তু আমার বিল চুকাবার পালা। তুমি মদের …

টাকার কুমীর Read More »

টুপুর ও মৌ

টুপুরঃ স্বামী হিসেবে তুমি কী রকম ছেলেকে পছন্দ কর? মৌঃ ছেলেটি হবে রোমান্টিক। নাচ, গান ভালো জানা চাই। আমার জীবনের ব্যাপারে কোন রকম হস্তক্ষেপ করবে না; আমার মুখের উপর কোন কথা বলবে না; একান্ত অনুগত হয়ে থাকবে। টুপুরঃ তা হলে তোমার স্বামীর দরকার নেই। তোমার দরকার একটি টেলিভিশন সেট।

রেস্টুরেন্টে বন্ধু

রেস্টুরেন্টে বন্ধুকে বিমর্ষ হয়ে বসে থাকতে দেখে অপর বন্ধু কারণ জানতে চাইল। – কিরে, অমন মন খারাপ করে বসে আছিস কেন? – বউয়ের সঙ্গে ঝগড়া হয়েছে। বউ প্রতিজ্ঞা করেছে সাতদিন আমার সঙ্গে কথা বলবে না। – এতো ভাল কথা। এতে মন খারাপ করার কী আছে? – মন খারাপ সে জন্য নয়। সাতদিনের আজই শেষ দিন।

বিশ্বাস

দুই বান্ধবীর আলাপ করছে। – আমি ডাক্তার সাহেবকে বলেছি যে, আজ সন্ধ্যায় যখন তিনি আমাকে পরীক্ষা করবেন তখন যেন নার্স সাথে থাকে। – কেন? একা অবস্থায় ডাক্তার সাহেবকে বিশ্বাস করতে পারছ না? – তা পারছি কিন্তু ওয়েটিং রুমে আমার স্বামীর সঙ্গে নার্সকে বিশ্বাস করতে পারছি না।

৫০০ টাকা ধার

১ম বন্ধুঃ আজ আমার জন্মদিন… তাই ঠিক করেছি সারা দিন ভাল হয়ে চলব, কারো সাথে খারাপ ব্যবহার করব না… সবার কথা শুনব। ২য় বন্ধুঃ তাহলে ৫০০ টাকা ধার দে তো!