অন্যান্য

Other bangla jokes

ভিখারি ও খিচুড়ি

ভিখারিকে দেখে গৃহিণী বললেন, তোমাকে তো মনে হয় চিনি। মাস দুই আগে তোমরা কয়েকজন আমার এখানে খিচুড়ি খেয়ে গিয়েছিলে না? ভিখারি বলল, হ আম্মা। আমরা তিন জন আছিলাম। তার মধ্যে আমিই শুধু বাঁইচ্চা আছি। সেই খিচুড়ির ধাক্কা খালি আমিই সামলাইতে পারছিলাম।

মিতব্যয়ী ও কৃপণ

ছেলেঃ মিতব্যয়ী ও কৃপণের মধ্যে তফাত কী? বাবাঃ আমি যদি নিজের জন্য কম দামি স্যুট কিনি সেটা হবে মিতব্যয়। আর যদি তোমার জন্য কম দামের কাপড় কিনি সেটাকে বলা হবে কৃপণতা।

জনৈক বিখ্যাত ব্যবসায়ী

জনৈক বিখ্যাত ব্যবসায়ী তার ছেলেকে উপদেশ দিচ্ছেনঃ দেখো ব্যবসাতে উন্নতি করতে চাও তো দুটি কথা সব সময় মনে রাখবে। তা হল সততা আর সুবুদ্ধি। সততা মানে কি বাবা? সততা! সততা – মানে এই ধর যখন কাউকে কোন কথা দেবে তখন সেটা তোমার রাখা উচিৎ। আর সুবুদ্ধি? সুবুদ্ধি মানে কাউকে কোন কথাই দেবে না।

বিপদজনক সাইনবোর্ড

রাস্তার পাশে একটা বিরাট খাদ দেখে এক টুরিষ্ট তার গাইডকে জিঞ্জেস করলঃ এত নীচু খাদ – কিন্তু ‌’বিপদজনক’ সাইনবোর্ড নেই কেন? গাইডঃ ছিল এতদিন কিন্তু কোন দুর্ঘটনা ঘটেনি বলে তুলে নেওয়া হয়েছে।

কঞ্জুস কৃষক

এক কঞ্জুস কৃষক হঠাৎ করে কুয়োতে পড়ে গেল। স্ত্রী উপর থেকে চিৎকার করে বলল, আমি এক্ষুনি ক্ষেত থেকে মজুরদের ডেকে এনে তোমাকে উদ্ধার করছি। কৃষক কুয়োর ভিতর থেকে জানতে চাইল, এখন ক’টা বাজে? – এগারটা। – তাহলে একঘন্টা পরে যাও। তখন ওদের খাবার ছুটি হবে । ততক্ষণ আমি সাঁতার কেটে থাকতে পারব।

থিয়েটারে নতুন

থিয়েটারে নতুন এক অভিনেতা এসেছেন। থিয়েটারের এক কর্মীর কাছে জানতে চাইলেন, আপনাদের গ্রীন রুম টা কোনদিকে? – ঠিক জানি না। – সেকি, আপনি এই থিয়েটারে দারোয়ানের কাজ করেন না? – তা করি, কিন্তু আমি তো কালার ব্লাইন্ড। কোনটা গ্রীন আর কোনটা গ্রে তা বুঝতে পারি না।

ফিল্ম স্টার টুপুর

– ফিল্ম স্টার টুপুরকে চিনিস? – চিনব না আবার, আমার ছেলেবেলায় উনি আমাদের পাড়াতে থাকতেন। তখন আমার বয়স ছিল আট বছর উনার উনিশ-কুড়ি। – এখন? – শুনি তো উনার এখন ছাব্বিশ, আমি অবশ্য তিরিশে পৌঁছেছি।

গ্রাম থেকে শহরে

গ্রাম থেকে এক লোক শহরে বেড়াতে এল। ট্যাক্সি দেখে সে খুব অবাক। ড্রাইভারের সাথে কথা বলে ট্যাক্সিতে উঠে বসল। ড্রাইভার তাকে নিয়ে শহরটা ঘুরে দেখাতে লাগল। হঠাৎ ট্যাক্সি একটা গাছের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে ওখানেই থেমে গেল। ড্রাইভার তখন বলল, ট্যাক্সি আর যাবে না, তুমি নেমে যাও। গ্রাম্য লোকটা কিছুক্ষণ চিন্তা করে বলল, তা নেমে যাচ্ছি। …

গ্রাম থেকে শহরে Read More »

আরশোলা মরলে তো

– আপনার দোকানে আরশোলা মারার ওষুধ পাওয়া যাবে? – হ্যাঁ, যাবে। – আরশোলা মারার পাপ আপনার হবে না আমার? – কারোরই হবে না। – কেন? – আরশোলা মরলে তো!

স্বামী পালটে নিন

খদ্দেরঃ দয়া করে আমার গাড়িটা পাল্টে দিন। আমার স্বামী খুবই বেঁটে, ব্রেক পর্যন্ত ওর পা পৌঁছায় না। সেলসম্যানঃ আমরা খুবই দুঃখিত। একবার বিক্রি হয়ে যাওয়া জিনিস আমরা ফেরত নিই না। আপনি এক কাজ করুন, গাড়ির ব্রেক অনুযায়ী আপনি আপনার স্বামী পালটে নিন।