খেলাধুলা

Sports jokes in bangla

ফুটবল খেলা

আমিষাশী আর মাংসাশীদের মধ্যে ফুটবল খেলা হচ্ছে। হাফ টাইমের আগেই মাংসাশীরা দু’গোলে এগিয়ে গেল। বিরতির পর আবার খেলা শুরু হল। বাঘ বল নিয়ে এগোচ্ছে। গোলের কাছে প্রায় পৌঁছে গেছে। এমন সময় শুঁয়োপোকার চমৎকার স্লাইডিং ট্যাকল এ গোল বেঁচে গেল। নিরামিষাশী ক্যাপ্টেন ঘোড়া দৌড়ে এসে শুঁয়ো পোকাকে জড়িয়ে ধরল। তারপর একটু বিরক্ত হয়েই জিজ্ঞেস করল, এতক্ষণ …

ফুটবল খেলা Read More »

শারজায় ওয়ানডে ক্রিকেট

শারজা ওয়ানডে ক্রিকেটে ভারত গো-হারা হেরে দেশে ফিরেছে। লজ্জায় কেউ মুখ দেখাতে পারছে না। সবাই বাড়িতে লুকিয়ে বসে থাকে। শ্রীকান্ত আর থাকতে না পেরে দাড়িগোঁফ লাগিয়ে শিখ পাঞ্জাবি সেজে রাস্তায় বেরিয়ে পড়ল। খানিক দূর যাবার পর একজন মহিলা জিজ্ঞেস করল, এই যে শ্রীকান্ত কোথায় যাচ্ছ? শ্রীকান্ত অবাক, মহিলা তাকে চিনল কীভাবে? পরদিন সালোয়ার কামিজ পরে …

শারজায় ওয়ানডে ক্রিকেট Read More »

টসে তো জিতেছি

দশ উইকেটে হেরে দলটি ফিরে এল ক্লাবে। ক্লাব ম্যানেজার উৎসাহ জোগাতে চাইলেন খেলোয়াড়দের। – নো চিন্তা ডু ফুর্তি। হেরেছ তো কি হয়েছে? টসে তো জিতেছিলে।

ঘড়ি মেকানিক

প্র্যাকটিসের সময় এক অ্যাথলেট তার কোচকে বলল, আমার স্টপওয়াচে এই মাত্র দেখলাম, আমি বিশ্বরেকর্ডেরও কম সময়ে ৪০০ মিটার দৌড় শেষ করেছি। এটা এখন কাকে জানাব? কোচ বললেন, ঘড়ি মেকানিককে।

মিস করবে

পেনাল্টি কিক মিস করে খেলোয়াড়টি কোচের কাছে গিয়ে খুব আফসোস করতে লাগল। – এমন একটা সহজ মিস করলাম, ইচ্ছে করছে নিজেকেই নিজে একটা লাথি মারি। – সেটাও তুমি মিস করবে।

এত ধৈর্য কোথায়!

দু’জন দাবা খেলছিল। পাশে দাঁড়িয়ে আরেক ভদ্রলোক পাক্কা দু’ঘন্টা ধরে তাদের দাবার চাল বলে দিচ্ছিলেন আর তাদের ভুলে সমালোচনা করছিলেন। শেষমেশ অতিষ্ঠ হয়ে একজন খেলোয়াড় বলল, তা হলে আপনিই খেলুন না। ভদ্রলোক প্রায় আঁতকে উঠে বললেন, না, না, আমার এত ধৈর্য কোথায়!

ব্যাটিং মিস

ডাক্তারঃ আপনি বলছেন আপনি সারা রাত ধরে ক্রিকেট খেলার স্বপ্ন দেখেন। রোগীঃ হ্যাঁ। ডাক্তারঃ কত দিন ধরে এটা চলছে? রোগীঃ প্রায় এক বছর। ডাক্তারঃ হুঁ, কিন্তু আপনার অন্য কোনো স্বপ্ন দেখতে ইচ্ছে করে না? যেমন ধরুন, খাবারদাবার বা বেড়াতে যাওয়া…? রোগীঃ হুঁ, ও-সব করতে গিয়ে আমি আমার ব্যাটিংটা মিস করি আর কি!

বিস্ময়বালক আশরাফুল

একদিন নয়ন বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমের কোচ স্টুয়ার্ট ল’ এর সাথে কথা বলছে – কোচঃ তুমি কি জানো, আমি আশরাফুলকে সব সময় বিস্ময় বালক বলি! নয়নঃ কেন? কোচঃ যতবারই জাতীয় টিমে আমি তার খেলা দেখি, বিস্ময়ে অবাক হয়ে ভাবি, কেন ও টিমে?

ইএসপিএন এ কী হয়?

শিক্ষকঃ ধ্রুব, বলতো এসিসি তে কী হয়? ধ্রুবঃ এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল। শিক্ষকঃ ভালো। এবার অয়ন বলতো বিবি তো কী হয়? অয়নঃ বাংলাদেশ ব্যাংক স্যার। শিক্ষকঃ খুব ভাল, নন্দদুলাল, তুমি এবার বলতো ইএসপিএনএ কী হয়? নন্দদুলালঃ সারা দিন শুধু খেলা হয় স্যার।

সিন্ডেরেলা এবং ফুটবল

সিন্ডেরেলার পক্ষে একজন ভাল ফুটবল খেলোয়ার হওয়া সম্ভব ছিল না কেন? – কারণ সে তার জুতা হারিয়ে ফেলেছিল, বল (বলরুম) থেকে পালিয়ে গিয়েছিল এবং তার কোচ ছিল একটি মিষ্টি কুমড়া।