Menu
ফিচার্‌ড জোকস
  • আবুল

    - আবুল টা সত্যিই আবুল। - কেন? ও কী করল? - ও সেদিন দেখি একটা এন্টিক শপে ঢুকে বলে নতুন কী আসছে?

বিরক্ত বাবা

বিরক্ত হয়ে বাবা ছেলেকে বললেন, কেবল প্রশ্ন আর প্রশ্ন! এত প্রশ্ন কর কেন? আমার ছেলেবেলায় আমি যদি বাবাকে এত প্রশ্ন করতাম তা হলে যে কী হত তাই ভাবি। ছেলে বলল, তা হলে হয়তো আমার দু’একটা প্রশ্নের আজ জবাব দিতে পারতে বাবা।

আরো পড়ুন »

বিশুদ্ধ পানি

স্বাস্থ্য বিভাগের এক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এক স্কুল পরিদর্শনে গিয়ে ছাত্রছাত্রী বিশুদ্ধ পানি পান করে কিনা তার খোঁজ খবর নিলেন। – ছাত্র ছাত্রীদের বিশুদ্ধ পানির ব্যাপারে আপনারা সতর্ক তো? – জ্বী। – কীভাবে পানি বিশুদ্ধ করা হয়? – প্রথমে পানি ফুটিয়ে নেওয়া হয়। – তারপর? – সেই পানি ফিল্টার করা হয়। – বাহ্ বেশ! তারপর? – তারপর নিরাপত্তার জন্য আমরা সবাই ডাব খাই।

আরো পড়ুন »

ভ্যালেন্টাইন ডে – ২

ছেলেঃ আজ ভ্যালেন্টাইন ডে, চল আজ আমরা অন্যরকম একটা কিছু করি। মেয়েঃ কী সেটা? ছেলেঃ ব্যাপারটা ‘চ’ দিয়ে। মেয়েঃ বেশ! তারপর চটাস করে একটা চড়ের শব্দ শোনা গেল।

আরো পড়ুন »

ভ্যালেন্টাইন ডে – ১

মেয়েঃ আজ ভ্যালেন্টাইন ডে, চল আজ আমরা অন্যরকম কিছু একটা করি। ছেলেঃ কী সেটা? মেয়েঃ ব্যাপারটা ‘চ’ দিয়ে ছেলেঃ (খুশি) বেশ! তারপর তারা ফুলপ্লেটে চটপটি খেয়ে বাড়ি ফিরল।

আরো পড়ুন »

বেয়াদপ পাখি

টিনা রাস্তা দিয়ে হাঁটছে পাখির দোকানের পাশ দিয়ে যাবার সময় একটা খাঁচার তোতাপাখি তাকে দেখে বললো, “অ্যাই আপু, আপনি দেখতে খুব কুৎসিৎ। টিনা চটে গেলেও কিছু বলল না। পরদিন সেই দোকানের পাশ দিয়ে যাবার সময়ও একই ঘটনা ঘটলো, পাখিটা বলে উঠলো, ‘অ্যাই আপু, আপনি দেখতে খুবই কুৎসিত!’ দিনা দাঁতে দাঁত চেপে হজম করে গেল। তার পরদিন সেই দোকানের পাশ দিয়ে যাবার সময়ও পাখিটা বলে উঠলো, ‘অ্যাই আপু, আপনি দেখতে খুবই কুচ্ছিত!’ এবার টিনা মহা চটে দেকানের ম্যানেজারকে হুমকি দিলো, সে মাস্তান লেলিয়ে এই দোকানের বারোটা বাজিয়ে ছাড়বে। ম্যানেজার মাফ চেয়ে বললো, সে এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে, পাখিটা আর এমন করবে না।

আরো পড়ুন »

আবার আসবে কিন্তু

হাসপাতালে এক রোগী দীর্ঘদিন থাকল। ডাক্তার, নার্স, রোগী সবার সাথে তার খাতির হয়ে গিয়েছিল। একদিন সুস্থ হয়ে চলে যাচ্ছে সবাই বলল, “আবার আসবে কিন্তু”।

আরো পড়ুন »

ছুটির ঘন্টা

বাচ্চা প্রথম স্কুলে যাচ্ছে নিয়মিত। একদিন বাবা জানতে চাইলেন, – বাবা, স্কুলের কোন জিনিসটা তোমার ভালো লাগে সবচেয়ে বেশি? – স্কুলের ছুটির ঘন্টা।

আরো পড়ুন »

সেলফিশ

পরীক্ষার হল – – দোস্ত, স্বার্থপরের ইংরেজি কী রে? – এখন বলতে পারব না। দেখছিস না ইংরেজি স্যার কীভাবে তাকিয়ে আছে এদিকে? – বুঝেছি, তুই একটা সেলফিশ।

আরো পড়ুন »

ভালো হোটেল

একটা দামি হোটেলে ম্যানেজারের কাছে এলেন এক বোর্ডার। – আমি হতাশ। – কেন? – আমার ধারনা ছিল এটা একটা ভাল হোটেল। এখন মনে হচ্ছে আমার ধারনা ভুল। – কেন এ ধারনা হল? – দেখলাম এক লোক একটা তরুণীকে প্রকাশ্যে ছুটে ধরার চেষ্টা করছে—ছি—ছি— – তা লোকটি কি শেষ পর্যন্ত ধরতে পেরেছে? – না তা পারে নি। – তা হলে কী করে আপনি ধারনা করলেন আমাদের হোটেল ভাল না!

আরো পড়ুন »

পত্রিকার বিকল্প

-তোমার কি মনে হয় টেলিভিশন পত্রিকার বিকল্প হতে পারে? – কখনোই না। – কেন? – পত্রিকার উপর একটা মাছি বসলে তুমি কি সেটা টিভি দিয়ে বাড়ি দিয়ে তাড়াবে?

আরো পড়ুন »

ভূতের গল্প

ছোট বাচ্চা ছোট খালার কাছে আব্দার করছেঃ – ছোট খালা একটা ভূতের গল্প বল। – আমি ভূতের গল্প জানি কে বলল? – ঐ যে বাবাকে খালি কী বলে ভয় দেখাও!

আরো পড়ুন »

ছেলে বোকা বাবা চালাক

এক তরুণী এক বাড়ির গভর্নেসের চাকরি করত। হঠাৎ ছেড়ে দিল। তার বান্ধবী ধরল, ছাড়লি কেন? – আর বলিস না ঐ বাড়ির ছেলেটা বোকা আর বাবাটা বেশি চালাক।

আরো পড়ুন »

তরুণী বুয়া

বাড়ির তরুণী বুয়া আরেক বাসায় চাকরির জন্য গেছে। নতুন বেগম সাহেব তার ইন্টারভিউ নিচ্ছেন। – আগের বাসা ছাড়লে কেন? – ঐ বাড়ির সাহেব-বিবি সবসময় ঝগড়া করে। – এটা খুবই খারাপ – তাইলেই বুঝেন, আমার আর সাহেবের ব্যাপার নিয়া বিবি সাহেবের এত মাথা ব্যথা কেন?

আরো পড়ুন »

বিঞ্জানের কি বিস্ময়

কোন এক যাত্রী ভুল করে চিটাগাংগামী ট্রেনের পরিবর্তে সিলেটগামী ট্রেনে চড়ে বসল। ঘন্টাখানেক পরে উপরের বার্থে অন্য এক যা্ত্রী শুয়ে আছে দেখে তার সঙ্গে আলাপ করতে উৎসাহী হয়ে বললঃ কি মিষ্টার, আপনার যাওয়া হচ্ছে কোথায়? দ্বিতীয় যাত্রীঃ সিলেট। প্রথম যাত্রীঃ (কিছুক্ষণ চুপ করে থাকল) বিজ্ঞানের কি বিস্ময় দেখুন, একই ট্রেনের উপরের বার্থ যাচ্ছে সিলেট আর নীচের বার্থ যাচ্ছে চিটাগাং।

আরো পড়ুন »

মাথা ভর্তি টাক

দুই বন্ধুতে বহুদিন পর দেখা। প্রথম বন্ধু জিঞ্জেস করে, হ্যাঁরে ছেলেবেলায় তোর কত আশা ছিল মনে, সেসব কিছু পূরণ হলো? দ্বিতীয় বন্ধুঃ হ্যাঁ ভা, একটা আশা সফল হয়েছে। স্কুলে পড়া বলতে না পারার জন্য যখন মাষ্টার চুল ধরে হ্যাঁচকা টান মারতো, তখন ভাবতাম আমার যদি চুল না থাকতো, কি ভালই না হতো। এখন এই দেখ, মাথা ভর্তি টাক।

আরো পড়ুন »

তিন দিন ধরে দেখা নেই

প্রথম বান্ধবীঃ ওর কথা আর বলিসনে ভাই। তিনদিন ধরে ওর সঙ্গে আমার দেখা নেই। দিত্বীয় বান্ধবীঃ কোথায় কোথায় ঘোরেন তোর স্বামী, তুই জানিস না? প্রথম স্বামীঃ কোথায় আবার, বাড়িতে।

আরো পড়ুন »

বাইশ বছর

তিন বুড়োর দেখা হল এক পার্কে। পরিচিত হওয়ার পর নিজেদের মধ্যে আলাপ জুড়লো। প্রথম বুড়োঃ আমার বয়স এখন ৮৬ বছর। দেখে নিশ্চয় তত মনে হয় না। জীবনে কখনো সিগারেট খাইনি, মদ ছুইনি, রাত জাগিনি। দ্বিতীয় বুড়োঃ আপনার চেয়ে আমি আরো কিছু বছরের বড়। ৯০ পার হয়েছি। অবশ্য সংযম আমাকে কম করতে হয়নি। নিরামিষ খেয়েছি, ঢেঁকি ছাটা চাল ছাড়া আজো ভাত খাই না।  (বলে তৃতীয় বুড়োর দিকে তাকালো।  যাকে তাদের মধ্যে সবচেয়ে বুড়ো মনে হলো।) তৃতীয় বুড়োঃ আমার বয়স যখন মাত্র আঠার তখন বাবা একটি কথাই বলতেন – আনন্দই জীবন। আমি সারা জীবন আনন্দ করেই কাটিয়েছি। ভাঙ গাঁজা ছাড়া নেশা জমে

আরো পড়ুন »

শূন্য নম্বর

বিজু পরীক্ষায় একটি বিষয়ে শূন্য পেল। সে ঐ বিষয়ের শিক্ষিকার কাছে গিয়ে বলল, আমার মনে হয় এই পেপারে আমি কিছুতেই শূন্য পেতে পারি না। : কি করবো? এর চেয়ে নিম্মতর মার্ক আর কিছু দেয়া যায় না, শিক্ষিকা বললেন।

আরো পড়ুন »

টাকার কুমীর

আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসের লোকেরা টাকার কুমীর বলে খ্যাতি আছে। দুইজন টেক্সাসের লোক একবার পানাহার করে বের হল। বারের সামনেই ছিল একটি মোটর কোম্পানির শো। দু’জন দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে গাড়ি দেখছিল। হঠাৎ একজন বলল, ও গাড়ির রং তো খুব সুন্দর, চল কিনে নেওয়া যাক। দ্বিতীয়জন বললো, বেশতো, কিন্তু বন্ধু এবার কিন্তু আমার বিল চুকাবার পালা। তুমি মদের বিল দিয়েছ।

আরো পড়ুন »

চুরুট ধরা

১ম বন্ধুঃ বা!, তুমি দেখি চুরুট ধরেছ! ২য় বন্ধুঃ কি আর করি, ডাক্তার আমাকে সিগারেট ছুঁতে বারন করেছেন।

আরো পড়ুন »

বাহাদুর

সবাই নিরনের বাহাদুরীর প্রশংসা করছিল। শ্যামল জলে ডুবে যাচ্ছিল। সে পুকুরে ঝাঁপিয়ে পড়ে তাকে তুলে নিয়ে এসেছে। এত সাহস তুমি কোথায় পেলে বলতো খোকা? – কী করব, ও আমার জুতো পড়ে ছিল যে!

আরো পড়ুন »

আমাদের পায়জামা

(নব বিবাহিত দম্পতির মধ্যে কথা হচ্ছে): স্বামীঃ আমার কলম টা টেবিলের ওপর থেকে দাও তো! স্ত্রীঃ তোমাকে না বলেছি এখন তোমার বা আমার বলতে কোন জিনিস নাই, সব ব্যাপারে বলবে আমাদের স্বামীঃ ও ভুল হয়ে গেছে। টেবিলের ওপর থেকে আমাদের কলমটা দাও ও সেই সঙ্গে আমাদের পায়জামা ও শার্টটাও দাও তো!

আরো পড়ুন »

সাহসিকতা

একজন সৈনিককে জিঞ্জাসা করা হল যে, সে কেমন করে সাহসিকতার বিষয়ে বিশেষ মেডেলটি পেল। সৈনিক বললেন যে, একটি দুঃসাহসিক কাজের জন্য আমাদের ডাকা হয়। কাজটা এত দুঃসাহসিক ছিল যে সেখানে কারো জ্যান্ত অবস্থায় ফেরার সম্ভাবনা খুবই কম ছিল। আমাদের বলা হয়েছিল যে যারা কাজটি করতে চাও দু’কদম সামনে এগিয়ে এস। আপনি কি সম্মুখে দাঁড়িয়েছিলেন? সৈনিকঃ না, সবাই ভয়ে দু’কদম পিছনে গিয়ে দাঁড়িয়েছিল।

আরো পড়ুন »

প্যারাডাইস লস্ট, প্যারাডাইস রিগেইন্‌ড

শিক্ষকঃ মিল্টনের জীবনী ও তাঁর রচনার সংক্ষিপ্ত বিবরন দাও। ছাত্রঃ মিলটন বিবাহ করেছিলেন। তিনি লিখলেন ‘paradise lost’. তারপর তাঁর স্ত্রী মারা গেলেন। তিনি লিখলেন ‘paradise regained’.

আরো পড়ুন »

মিতব্যয়ী ও কৃপণ

ছেলেঃ মিতব্যয়ী ও কৃপণের মধ্যে তফাত কী? বাবাঃ আমি যদি নিজের জন্য কম দামি স্যুট কিনি সেটা হবে মিতব্যয়। আর যদি তোমার জন্য কম দামের কাপড় কিনি সেটাকে বলা হবে কৃপণতা।

আরো পড়ুন »

জনৈক বিখ্যাত ব্যবসায়ী

জনৈক বিখ্যাত ব্যবসায়ী তার ছেলেকে উপদেশ দিচ্ছেনঃ দেখো ব্যবসাতে উন্নতি করতে চাও তো দুটি কথা সব সময় মনে রাখবে। তা হল সততা আর সুবুদ্ধি। সততা মানে কি বাবা? সততা! সততা – মানে এই ধর যখন কাউকে কোন কথা দেবে তখন সেটা তোমার রাখা উচিৎ। আর সুবুদ্ধি? সুবুদ্ধি মানে কাউকে কোন কথাই দেবে না।

আরো পড়ুন »

স্ত্রী শুনে বুঝুক

তাস খেলে, ড্রিংক করে আড্ডা দিয়ে ফিরতে অনেক রাত হয়ে গেল। খুব ভয়ে ভয়ে ফিরছিল রাশেদ। বাড়ির রাস্তায় এসে পড়ায় মৌলানা সাহেবের সঙ্গে দেখা। বাড়ির গেটে এসে রাশেদ তাকে একটু বসে যেতে অনুরোধ করল। তিনিও দাওয়াত খেয়ে ফিরছিলেন। একই রাস্তা বলে তিনি রাশেদের সঙ্গী হয়েছিলেন। অনেক রাত হয়ে গেছে বলে মৌলানা আপত্তি করলেন। রাশেদ কাতর ভাবে বলল, মাত্র এক মিনিট হুজুর, অন্তত আমার স্ত্রী শুধু বুঝুক এতক্ষণ আমি কার সাথে ছিলাম।

আরো পড়ুন »

মানচিত্রে তিন দিন

এক অর্ধশিক্ষিত আরেক অর্ধশিক্ষিতের কাছে বড়াই করে বলছে- পৃথিবীর কোন দেশ আমার ঘুরার বাদ নেই। জয়দেবপুর, ফরিদপুর, সাভার, বিক্রমপুর, কালীগঞ্জ, মুন্সিগঞ্জ আর কত বলব! উত্তরে অপর অর্ধ শিক্ষিত বলল, ‘মানচিত্র’ সম্পর্কে তাহলে তোমার ভালই ধারনা আছে দেখছি। – হ্যাঁ সেই দেশেও আমি ছিলাম তিন দিন।

আরো পড়ুন »

বদরাগী গিন্নী

দুই মাতাল বসে বসে স্ত্রী সামলানো বিষয় নিয়ে গবেষণা করছে। প্রথম মাতাল – ভাই আজকে বাড়ি যেতে ভীষণ ভয় করছে। আমার গিন্নী একবার রাগলে আর রক্ষা নাই। দ্বিতীয় মাতালঃ আমার স্ত্রী তোমার স্ত্রীর মত নয়। এই দেখ না গিন্নী কালকে আমাকে হাতে পায়ে ধরে বিছানায় উঠিয়েছে। প্রথম মাতালঃ সত্যি ভাই তোমার স্ত্রীর ভাল বুদ্ধি আছে বলতে হবে। অন্তত আমাদের এই ড্রিংক করাটাকে মোটেও খারাপ চোখে দেখে না। দ্বিতীয় মাতালঃ না, ঠিক তা নয়। আমি কালকে ভয়ে খাটের নীচে ছিলাম যে!

আরো পড়ুন »

নাইট ক্লাবে গল্‌ফ

গভীর রাতে মাতাল হ্যারী ঘরে ফিরলে স্ত্রী বিরক্ত হয়ে বললো, তুমি আবার মদ খেয়েছ? কই না তো – হ্যারী বলল আমতা আমতা করে। স্ত্রী ভুরু কুঁচকে বললো, এত রাত অবধি কোথায় ছিলে তাহলে? হ্যারী জবাব দিল – গল্‌ফ খেলছিলাম। -রাত এখন সাড়ে চারটা! হ্যারী বলল, তাতে কি, আমি তো নাইট ক্লাবে খেলছিলাম।

আরো পড়ুন »

মাতাল অবস্থায়

ম্যাজিষ্ট্রেটঃ কাল রাতে দু’জন পুলিশ মাতাল অবস্থায় তোমাকে রাস্তা থেকে তুলে এনেছে। কথাটা কি সত্যি? আসামীঃ জি হুজুর, দু’জন পুলিশই মাতাল ছিল।

আরো পড়ুন »

আত্মীয় ট্রাফিক

তিন বন্ধু সিনেমা হলে যাবার উদ্দেশ্যে একটা রিক্সায় চড়ে যাচ্ছে। পথিমধ্যে ট্রাফিক। রিকশা চালকঃ একজন নাইমা পড়েন, সামনে ট্রাফিক। ১ম বন্ধুঃ কিছু হইব না, ট্রাফিক আমাগো আত্মীয়। ট্রাফিক রিক্সায় তিনজন যাত্রী দেখে ড্রাইভারকে এক থাপ্পড় লাগালো। রিক্সা চালকঃ সাব, আপনেরা আমারে দুইডা থাপ্পড় খাওয়াইলেন। এইনা ট্রাফিক আপনেগো আত্মীয়? ২য় বন্ধুঃ ঠিকই তো কইছি।আমাগো আত্মীয় তো ঠিকই কিন্তু তোর তো আত্মীয় না।

আরো পড়ুন »

বিপদজনক সাইনবোর্ড

রাস্তার পাশে একটা বিরাট খাদ দেখে এক টুরিষ্ট তার গাইডকে জিঞ্জেস করলঃ এত নীচু খাদ – কিন্তু ‌’বিপদজনক’ সাইনবোর্ড নেই কেন? গাইডঃ ছিল এতদিন কিন্তু কোন দুর্ঘটনা ঘটেনি বলে তুলে নেওয়া হয়েছে।

আরো পড়ুন »

লাঞ্চ আওয়ার – চাইনিজ রেষ্টুরেন্ট

এক চাইনিজ রেষ্টুরেন্টে দু’জন গেষ্ট বসেছে পৌনে তিনটার সময়। ঐ রেষ্টুরেন্টে তিনটা পর্যন্ত লাঞ্চ আওয়ার। ওয়েটার কিছুক্ষন ওদেরকে খাবার দেওয়ার পর হঠাৎ বন্ধ করে দিল। গেষ্ট – কী ব্যাপার? খাবার দেওয়া বন্ধ করে দিলে যে! ওয়েটার – স্যার, কিছু মনে করবেন না। তিনটায় আমার ডিউটি শেষ। আপনারা অপেক্ষা করুন। সন্ধ্যা সাতটায় ডিনারের সময় আপনার বাকি খাবার দেওয়া হবে।

আরো পড়ুন »

ভল্টের তালা

জজঃ তোমার পেশা কী? আসামিঃ তালা এক্সপার্ট জজঃ রাত দুটায় সোনার দোকানে কী করছিলে? আসামিঃ ওদের ভল্টের তালাটা সার্ভিসিং করছিলাম।

আরো পড়ুন »

পয়সা না দেওয়া

জজঃ তুমি বলছ তুমি ক্ষুধার্থ ছিলে বলে হোটেল থেকে ক্যাশ ডাকাতি করেছ। কিন্তু হোটেলের খাবার দাবার ডাকাতি করাটাই কি স্বাভাবিক ছিল না? ডাকাতঃ খেয়ে পয়সা না দেওয়াটা আমার জন্য অপমানজনক…..মহামান্য আদালত!

আরো পড়ুন »

বুলডগ

– বল তো বুলডগের মুখটা ভোতা কেন? – বুলডগ সবসময় পার্ক করা গাড়ি ফলো করে যে!

আরো পড়ুন »
August 2019
M T W T F S S
« Jul    
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031  

এই ওয়েবসাইটের কোন অনুষ্ঠান সম্পর্কে অভিযোগ থাকলে আমাদের কনট্যাক্ট পেইজে যোগাযোগ করুন। নিত্য নতুন জোকস পেতে সাইট টিতে চোখ রাখুন।